ছেলেহত্যার বিচার চাইলেন রায়হানের মা

নিজস্ব প্রতিবেদক: অকালে পুত্র হারানো এক দু:খি মায়ের আহাজারির কাছে ম্লান হলো পিচঢালা পথের তীব্র উত্তাপ। কোনোদিকে ভ্রুক্ষেপ নেই, বসে পড়লেন পথে। একটাই দাবি, ছেলেহত্যার বিচার চাই। আকাশপানে দু’হাত তুলে ডুকরে ডুকরে কেঁদে স্রষ্টার কাছেও বিচার দিলেন রায়হানের মা সালমা বেগম।সোমবার (১২ অক্টোবর) বিকাল ৩টার দিকে আখালিয়া এলাকার রায়হান আহমদকে হত্যার প্রতিবাদে সিলেট-সুনামগঞ্জ সড়কের আখালিয়া এলাকায় মানববন্ধন ও টায়ার জ্বালিয়ে বিক্ষোভ করেন স্থানীয়রা। এসময় কাঁদতে কঁদাতে এসে রাস্তায় বসে পড়েন রায়হানের মা।

তপ্ত রোদ আর পিচঢালা রাস্তার তীব্র গরমকে উপেক্ষা করে সালমা বেগম তার ছেলে হত্যার বিচার চেয়ে আকাশপানে দুহাত তুলে স্রষ্টার কাছে বিচার চান। চিৎকার করে ছেলে হত্যার বিচার দাবি করেন তিনি। এসময় তাঁর সঙ্গে ছিলেন নিহত রায়হানের পরিবারের অন্যান্য সদস্য ও স্বজন। অকালে সন্তান হারানো এক মায়ের আর্তনাদে তখন ভারী হয়ে উঠে আশপাশ এলাকা ও পরিবেশ।

এসময় তিনি আহাজারি করে বলেন, আমার ছেলে ছিনতাইকারী বা অপরাধী নয় । তাকে পুলিশ ধরে নিয়ে গিয়ে বিনা দোষে রাতভর নির্যাতন করে হত্যা করেছে । পুলিশ মানুষের রক্ষক, কিন্তু সেই পুলিশই আজ আমার ছেলেকে হত্যা করলো। ঘুষের টাকার জন্য পুলিশ আমার ছেলেকে হত্যা করেছে। রায়হানের দুই মাস ২১ দিনের একটিমাত্র কন্যাসন্তান রয়েছে। সে বড় হলে তাকে আমি কী সান্তনা দিবো, আর আমি কীভাবে এটি সহ্য করবো?

সিলেটের আখালিয়া এলাকার যুবক রায়হান আহমদ ‘পুলিশি নির্যাতনে’ মৃত্যুবরণ করেছেন- এমন অভিযোগ আজ সোমবার পুলিশের বিরুদ্ধে এবং ‘হত্যাকারীদের’ ফাঁসির দাবিতে রায়হানের পরিবারের সদস্য, আত্মীয়-স্বজন এবং স্থানীয়রা মানববন্ধন ও বিক্ষোভ করেছেন। সোমবার (১২ অক্টোবর) বিকেল ৩টা থেকে ঘণ্টাব্যাপী অনুষ্ঠিত এ মানববন্ধনে বিক্ষোভকারীরা আল্টিমেটাম দিয়ে বলেন, ৭২ ঘণ্টার ভেতরে রায়হানের হত্যাকারীদের শাস্তির আওতায় আনতে হবে। তা না হলে কঠোর আন্দোলনের কর্মসূচি দেয়া হবে।

মানববন্ধনে কয়েক শ লোক উপস্থিত হয়ে রায়হান ‘হত্যা’র প্রতিবাদ করেন এবং ‘হত্যাকারীদের’ বিচার চান। এসময়  বিক্ষোভকারীরা পুলিশবিরোধী বিভিন্ন স্লোগান দেন এবং বিভিন্ন স্লোগান সংবলিত প্লে-কার্ড হাতে নিয়ে মানববন্ধনে দাঁড়িয়ে রায়হান হত্যার প্রতিবাদ করেন।