দোয়ারাবাজারে বিয়াইয়ের পিটুনিতে বিয়াই নিহত

দোয়ারাবাজার প্রতিনিধি : দোয়ারাবাজারে বিয়াইয়ের পিটুনিতে আহত বিয়াই মাঈন উদ্দিন (৬০) মারা গেছেন। রবিবার রাত ৮.৩০ ঘটিকায় চিকিৎসাধীন অবস্থায় সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে তার মৃত্যু হয়।

৮দিন আগে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে বিয়াই ও বিয়াইয়ের মারামারিতে গুরুতর আহত মাঈন উদ্দিনকে স্থানীয়রা উদ্ধার করে সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেন। দোয়ারাবাজার থানা সূত্র জানায়, উপজেলার নরসিংপুর ইউনিয়নের হাবিবনগর গ্রামে জমির ধান খাওয়াকে কেন্দ্র করে গত ২৭ সেপ্টেম্বর বিয়াই মাঈন উদ্দিনের সঙ্গে বিয়াই সরাফত আলীর কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে মারপিটের ঘটনা ঘটে। এতে মাঈন উদ্দিন গুরুতর আহত হন। পরে তাকে হাসপাতালে ভর্তি করার ৮দিনের মাথায় রোববার (৪ অক্টোবর) রাতে হাসপাতালে তার মৃত্যু হয়।

হত্যা মামলায় জড়িত ৩জন আসামীকে আটক করা হয়েছে। আটককৃত আসামীরা হলেন উপজেলার নরসিংপুর ইউনিয়নের পূর্ব সােনাপুর গ্রামের মৃত সুরুজ আলীর পুত্র খলিল আহমদ (২৩),সওকত আলীর পুত্র মাহফুজ রহমান (২১),সিদ্দিক মিয়ার পুত্র, জাহাঙ্গীর আলম (২০)।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা দোয়ারাবাজার থানার এসআই নােবেল সরকার জানান, হাবিব নগর গ্রামে তুচ্ছ ঘটকাকে কেন্দ্র করে দুই বিয়াইয়ের মাঝে মারামারি হলে গত ৩০ সেপ্টেম্বর থানায় অভিযোগ দাখিল করেন চিকিৎসাধীন অবস্থায় গতরাতে মাঈন উদ্দিন মারা যান, রাতে অভিযান চালিয়ে হত্যা মামলার ৩ জন আসামীকে আটক করা হয়েছে।

দোয়ারাবাজার থানার মামলা নং -১৫, তারিখ -৩০/ ০৯/ ২০২০, ধারা ১৪৩/৪৪৭/৩২৩/৩২/৩২৬/৩০৭/১১৪/৫০৬ পেনাল কোড। বেআইনী ভাবে ধারালাে দা, রামদা, সুলফি, ডেগার, লেহার রড, লাঠি-সােটা হাতে নিয়া নিহত মাঈন উদ্দিনের বসত বাড়ীতে অনধিকার প্রবেশ করিয়া মাঈন উদ্দিনকে মাথায় হেঁদ মারিয়া কাটা রক্তাক্ত জখম এবং এলােপাতারী মারপিট করে। অত্র মামলার অপর জখমী মােঃ ফয়েজ উদ্দিনকে মাথায় হেঁদ মারিয়া কাটা রক্তাক্ত জখম করে এবং হাতের কনুইয়ে গুরুতর রক্তাক্ত জখম করে ও বুকের নিচে বাম পাশে বাইরাইয়া ফুলা জখম করে।

পরবর্তীতে জখমীদেরকে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা সেবা দেওয়ার জন্য ভর্তি করা হলে জখমী মােঃ মাঈন উদ্দিন (৬০), পিতা-মৃত আমির উদ্দিন, সাং হাবিবনগর, ইউপি-নরসিংপুর, থানা- দোয়ারাবাজারা, জেলা- সুনামগঞ্জ গুরুতর আহত হইয়া চিকিৎসাধীন অবস্থায় গত ০৪/১০/২০২০ ইং তারিখ, সময় ০৮.৩০ ঘটিকার সময় হাসপাতালে মৃত্যুবরণ করেন। বিজ্ঞ আদালতের বিচারক শ্যামকান্ত সিনহা আটককৃত ৩জন আসামীর জামিন নামঞ্জুর করে জেল হাজতে প্রেরণ করেছে।

উল্লেখ্য নিহত মাঈন উদ্দিনের ছেলে কুদ্দুছ মিয়া ১নং আসামী সরাফত আলীর মেয়েকে বিয়ে করেন।

দোয়ারাবাজার থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি)মুহাম্মদ নাজির আলম বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, ৩জন আসামীকে আটক করে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। অন্য আসামীদের আটকের জন্য অভিযান অব্যাহত আছে।