রায়হান হত্যা ও ধর্ষকদের দ্রুত বিচারের দাবিতে সিলেটে মশাল মিছিল

পুলিশি নির্যাতনে যুবক হত্যা, দেশে অব্যাহত ধর্ষণের প্রতিবাদে, ধর্ষকদের দ্রুত বিচার ও ধর্ষকদের আশ্রয় প্রশ্রয় দাতাদের বিচারের দাবিতে সিলেটে মশাল মিছিল করেছে ধর্ষণ ও বিচারহীনতার বিরুদ্ধে বাংলাদেশ, সিলেট।

আজ বুধবার (১৪ অক্টোবর) সন্ধ্যা এই মশাল মিছিল অনুষ্ঠিত হয়।

বুধবার সন্ধ্যা ছয়টায় সিলেট কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার থেকে এই মশাল মিছিল শুরু হয়ে জিন্দাবাজার, সিটি পয়েন্ট ঘুরে আবার শহীদ মিনারে সমাবেশে এসে মিলিত হয়। সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্ট সিলেট নগর সভাপতি সঞ্জয় কান্ত দাসের সভাপতিত্বে ও ছাত্রফ্রন্ট সিলেট মহানগরের আহ্বায়ক সঞ্জয় শর্মার পরিচালনায় মিছিল পরবর্তী সমাবেশে বক্তব্য দেন, ছাত্র ইউনিয়ন সিলেট জেলার সভাপতি সরোজ কান্তি, ছাত্র ফ্রন্ট সিলেট মহানগরের সাধারণ সম্পাদক সাদিয়া নওশীন তাসনিম, ছাত্র ইউনিয়ন সিলেট জেলার সাধারণ সম্পাদক নাবিল এইচ, থিয়েটার মুরারিচাঁদের সহসাধারণ সম্পাদক আদাজ্জুমান আসাদ প্রমুখ।

এসময় মশাল মিছিল ও সমাবেশে সংহতি জানিয়ে উপস্থিত ছিলেন, বাংলাদেশে ছাত্র ইউনিয়ন সিলেট জেলার সাবেক সভাপতি মতিউর রহমান, ছাত্র ইউনিয়ন এমসি কলেজের সাবেক সভাপতি বিশ^পা ভট্টাচার্য্য, নাগরিক আন্দোলন কর্মী মাহবুবুর রহমান রাসেল, লেখক ও কবি শামসুল আমিন ।

সমাবেশে বক্তারা বলেন, ‘যে পুলিশ বাহিনী জনগণের নিরাপত্তায় নিয়োজিত থাকার কথা তারাই জনগণকে নির্যাতন করে খুন করছে। এটা কোনোভাবে মেনে নেওয়া যায় না। দেশে বিচারহীনতার সংস্কৃতির কারণেই পুলিশ ফাঁড়িতে একজন যুবককে খুন হতে হল। অবিলম্বে এই হত্যার সঙ্গে জড়িতদের গ্রেপ্তার করে তাদের সর্বোচ্চ শাস্তির দাবি জানাই। অবিলম্বে যদি হত্যার সঙ্গে জড়িতদের গ্রেপ্তার করা না হয় তাহলে সিলেটবাসীকে নিয়ে বৃহত্তর আন্দোলনের ডাক দিব আমরা।’

বক্তারা আরও বলেন,‘এমসি কলেজসহ সারাদেশের ধর্ষণের সঙ্গে জড়িতদের দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালে বিচার করতে হবে। ধর্ষকদের আশ্রয় প্রশ্রয় দাতাদেরও আইনের আওতায় নিয়ে আসতে হবে।’ এসময় বক্তারা ঢাকা থেকে নোয়াখালী অভিমুখে লংমার্চের সফলতা কামনা করেন এবং আগামী শুক্রবার বিকেল চারটায় সিলেটে প্রতিবাদী সাংস্কৃতিক সমাবেশের কর্মসূচি ঘোষণা করেন।