সিলেটের ৪ জেলায় ঈদের দিন থাকবে বৃষ্টি

ডেস্ক রিপোর্টঃ ঈদে সিলেট বিভাগের চারটি জেলায় থাকবে বৃষ্টি। তবে দিনের চেয়ে রাতেই তুলনামূলক বৃষ্টিপাত বেশি হবে। তিন জেলায় ঈদের দিনে তেমন বৃষ্টিপাত নেই, রয়েছে রাতে। তবে একটি জেলায় ঈদের দিনই বৃষ্টিপাত রয়েছে। 
ঈদের দিনের বৃষ্টিপাতের বিষয় উল্লেখ করে সিলেট আবহাওয়া অফিসের জ্যেষ্ঠ আবহাওয়াবিদ সাইদ আহমেদ চৌধুরী বুধবার (২৯ জুলাই) বলেন, ঈদের দিন হবিগঞ্জ সদরে দুপুর ১২টার পরে বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। তবে এর পরিমাণ কম। কিন্তু মূল বৃষ্টি ঝরবে রাত ১২টার পরে। মৌলভীবাজার সদরের বৃষ্টিপাত প্রায় হবিগঞ্জের মতোই। হবিগঞ্জের থেকে দিনে বৃষ্টির পরিমাণ কম হবে। তবে রাতে বেশি বৃষ্টিপাত হবে।

তিনি আরো বলেন, সুনামগঞ্জ সদরে আবার এর উল্টোটা। সকাল ৬টার পরে বৃষ্টি হবে এবং পরিমাণে বেশি হবে রাতে। আর সিলেট সদরে সারাদিনই অর্থাৎ সকাল থেকে দুপুর ১২টা ভেতর খুব হালকা বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। তবে রাত ১২টার পরে বড় বৃষ্টিপাত হবে। এর ফলে দিনে ঈদের কার্যক্রমে কোনো অসুবিধা হবে না।

সিলেট বিভাগের ৪টি জেলায় ২৯ জুলাই থেকে পরবর্তী ১০ দিনের বৃষ্টিপাতের পরিসংখ্যান উল্লেখ করে এ আবহাওয়াবিদ বলেন, হবিগঞ্জের মধ্যে সবচেয়ে বেশি বৃষ্টিপাত হওয়ার কথা বানিয়াচং উপজেলায়, ১৩৮ মিলিমিটার। মৌলভীবাজারের মধ্যে বড়লেখা উপজেলায় বৃষ্টিপাত হতে পারে ১৬৮ মিলিমিটার। সুনামগঞ্জের জামালগঞ্জ উপজেলায় ২০২ মিলিমিটার বৃষ্টি হওয়ার কথা। আর সিলেটের মধ্যে কানাইঘাট উপজেলায় ২১৪ মিলিমিটার বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে। এই বৃষ্টিটা কিন্তু বুধবার থেকে গণ্য করা হবে। ’সিলেট সদরে বুধবার সকাল থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত ৫৬ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত হয়ে গেছে বলে সিলেট আবহাওয়া অফিস জানায়।

মৌলভীবাজার জেলার পর্যটননগরী শ্রীমঙ্গল উপজেলা কথা উল্লেখ করে এ আবহাওয়াবিদ বলেন, ১০২ মিলিমিটার বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে এখানে। ইতোমধ্যেই মঙ্গলবার রাত ১২টার পর থেকে বেশ বৃষ্টিপাত হয়ে গেছে। ঈদের দিন সকালে খুব কম বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। তবে দুপুর ১২টার পর থেকে কিছু বৃষ্টিপাত থাকবে। কিন্তু মূল বৃষ্টিটা হবে রাত ১২টার পর।

আবহাওয়ার আগাম চালচিত্র বিশ্লেষণ করলে দেখা যায়, ঈদের দিনে তুলনামূলক বৃষ্টিপাত কম, সর্বোচ্চ বৃষ্টিপাত রাতের বেলায় হবে। ঈদের দিন রাতে বৃষ্টিপাত হলে সবচেয়ে বেশি সুবিধা হয়। পশুর নানান অপ্রয়োজনীয় অংশ বা বর্জ্য ধুয়ে মুছে পরিস্কার হয়ে যায় বলে’ জানান সিলেট আবহাওয়া অফিসের সিনিয়র আবহাওয়াবিদ সাইদ আহমেদ চৌধুরী।